Menu

সাবেক অর্থমন্ত্রী মুহিত ও সাইদুজ্জামানকে সংবর্ধনা

BIDS-BonikBarta.jpg

দেশের অর্থনীতিতে বিশেষ অবদান রাখায় সাবেক দুই অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ও এম সাইদুজ্জামানকে সংবর্ধনা দিয়েছে দৈনিক বণিক বার্তা ও বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান (বিআইডিএস)। আজ ২৯ আগস্ট, বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তাদেরকে সংবর্ধনা দেয়া হয়।

অনুষ্ঠানের অতিথি বর্তমান অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, প্রতিটি মানুষের জীবনেই কিছু স্মরণীয় সময় থাকে। সারাজীবন আমি আজকের এই সন্ধ্যাটিকে ধারণ করে রাখবো। তিনি বলেন, মুহিত ভাইয়ের সাথে প্রথমে আমার একটু ভুল বুঝাবুঝি হয়েছিল। তবে পরে আবার আমাদের সম্পর্ক ভালো হয়েছে। মুহিত ভাইয়ের চকলেট খুব প্রিয়। উনাকে চকলেট দেয়া যায়। চকলেট দিয়েও উনার মন জয় করা যায়।

সাবেক অর্থমন্ত্রীর রেখে যাওয়া কাজ এগিয়ে নেয়ার প্রত্যয় জানিয়েছে বর্তমান অর্থমন্ত্রী মুস্তফা কামাল বলেন, মুহিত ভাইয়ের রেখে যাওয়া কাজ আমি শেষ করবো। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সবসময়ই অর্থনৈতিক মুক্তির কথা বলেছেন এবং সে অনুযায়ী কাজ করে গেছেন। এই যাত্রার একটি গুরুত্বপূর্ণ কর্ণধর আবুল মাল আবদুল মুহিত। আমার বিশ্বাস সে লক্ষ্যে আমরা অবশ্যই একদিন পৌঁছাব।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বণিক বার্তা সম্পাদক দেওয়ান হানিফ মাহমুদ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে আবুল মাল আবদুল মুহিত ও এম সাইদুজ্জামানের কর্মময় জীবনের ওপর সংক্ষিপ্ত প্রামাণ্যচিত্র দেখানো হয়। পরে তাদের সংবর্ধনা দেয়া হয়। এ সময় দুজনকে উত্তরীয় পরিয়ে দেয়া হয় ও সম্মাননা ক্রেস্ট তুলে দেয়া হয়। একই সঙ্গে তাদের হাতে উপহার হিসেবে তুলে দেয়া হয় একটি পোট্রেট। বণিক বার্তা ও বিআইডিএসের এ উদ্যোগের জন্য তারা কৃতজ্ঞতা ও আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বিআইডিএসের সিনিয়র রিসার্চ ফেলো ড. নাজনীন আহমেদ।

সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ১২ বার বাজেট পেশ করে দেশের ইতিহাসে স্থান করে নিয়েছেন। তিনি লেখক, গবেষক, উন্নয়ন বিশেষজ্ঞ, অর্থনীতিবিদ ও কূটনীতিক হিসেবেও প্রশংসিত। বর্তমান সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রম ও পরিকল্পনায় গভীরভাবে সম্পৃক্ত ছিলেন তিনি।

এম সাইদুজ্জামান ১৯৮৪ সালের জানুয়ারি থেকে ১৯৮৭ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রধান অর্থ সচিব ও অর্থ মন্ত্রণালয় বিষয়ক রাষ্ট্রপতির উপদেষ্টা (একজন প্রতিমন্ত্রীর সমমর্যাদা) ছিলেন। তারপর অর্থ মন্ত্রণালয়ের পূর্ণ মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন। একই সময়ে তিনি পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বও পালন করেন।

অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে এম আব্দুল মোমেন, পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু বিশ্বাস, সাবেক কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিক উপদেষ্টা মসিউর রহমান, বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সংসদ সদস্য রাশেদ খান মেনন, ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান।

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বিআইডিএসের সিনিয়র রিসার্চ ফেলো ডক্টর নাজনীন আহমেদ, অনুষ্ঠানের সূচনা বক্তব্য রাখেন দৈনিক বণিক বার্তার সম্পাদক দেওয়ান হানিফ মাহমুদ। এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনাম।

সূত্র :: অর্থসূচক

শেয়ার করুন:

এই নিউজটি আপনার বাংলাদেশী বন্ধুদের মোবাইলে এসএমএস এ শেয়ার করুন।

AdsMic