Menu

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে ওয়েব জি.আই.এস. এর ক্যারিয়ার ও ব্যবহার

জি.আই.এস. এবং ওয়েব জি.আই.এস.

জি.আই.এস. এর অর্থ হচ্ছে জিওগ্রাফিক ইনফরমেশন সিস্টেম যেটা ভূগোল এবং তথ্য প্রযুক্তির সমন্বয়ে গঠিত একটি ভৌগলিক তথ্য ব্যবস্থা। অর্থাৎ, যেই সিস্টেমের সহায়তায় ভৌগলিক তথ্য বিষয়ক সেবা পাওয়া যায়, তাকেই বলা হয় জি.আই.এস.। আর যখন এই সেবাটা হয় ইন্টারনেট ভিত্তিক, তখন তাকে বলা হয় ওয়েব জি.আই.এস., যেমনঃ গুগল ম্যাপ, ওপেনস্ট্রিট্ম্যাপ, উবার, পাঠাও, গাড়ী ট্র্যাকিং, নেভিগেশন ইত্যাদি। পুরো বিষয়টাই হচ্ছে মানচিত্র এবং সফট্‌ওয়ার প্রোগ্রামিং নিয়ে খেলা করার মত মজার একটা বিষয় যেটা এখন বাংলাদেশের অনেক সরকারি এবং বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে প্রচুর পরিমাণে ব্যবহৃত হচ্ছে। শুধু তাই নয়, এখন বাংলাদেশে বেশ কিছু পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে জি.আই.এস. নিয়ে কোর্স করানো এমনকি স্নাতকোত্তর ডিগ্রীও প্রদান করা হচ্ছে।

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে জি.আই.এস. এবং ওয়েব জি.আই.এস.

বাংলাদেশে যেসকল সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে নগর পরিকল্পনা, মানচিত্র, জরিপ ও এলাকাভিত্তিক গবেষণামুলক কাজ করা হয় সেখানে জি.আই.এস. এর ব্যবহার হয়ে থাকে, যেমনঃ রাজঊক এবং বিভিন্ন সিটি কর্পোরেশন, এল.জি.ই.ডি., বাংলাদেশ জরিপ অধিদপ্তর, সি.ই.জি.আই.এস., আই.সি.ডি.ডি.আর.বি., বিভিন্ন আবাসন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ইত্যাদি। এমনকি দুর্যোগ বিষয়ক গবেষণা, পর্যটক বিষয়ক গবেষণায়ও এর ব্যবহার অনেক। এখন আমরা মোবাইল ফোন দিয়ে ইন্টারনেট ও ম্যাপের সহায়তায় খুবই সহজে বাইক অথবা গাড়ীতে যাতায়াত করতে পারি যেটা ওয়েব জি.আই.এস. এর একটি বড় অবদান, আর এই সেবাকে কেন্দ্র করে এখন বেশ কিছু ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের উৎপত্তি হচ্ছে, যেমনঃ উবার, পাঠাও, সহজ ইত্যাদি। কম্পিউটারে অথবা মোবাইলে আমরা যানবাহনকে ম্যাপ এ দেখে ট্র্যাক করতে পারি, এটাও হচ্ছে ওয়েব জি.আই.এস. প্রযুক্তি। এরকমই ট্র্যাকিং সেবা প্রদানকারি একটি প্রতিষ্ঠান হচ্ছে এন.আই.টি.এস। এছাড়াও বিভিন্ন ধরনের প্রতিষ্ঠান তাদের এলাকাভিত্তিক কাস্টমার বিশ্লেষণ, ব্রাঞ্চ অফিসগুলোর লাভ লোকসান বিশ্লেষণ ইত্যাদি কাজে ওয়েব জি.আই.এস. ব্যবহার করছে যেটা ইউরোপিয়ান দেশগুলোতে বহু আগে থেকেই ব্যবহৃত হয়ে আসছে। অর্থাৎ আমাদের দেশেও ওয়েব জি.আই.এস. এর ক্ষেত্র এখন হচ্ছে ও ভবিষ্যতে এটা বাড়ার সম্ভাবনা আছে।

জি.আই.এস. এর ক্যারিয়ার

বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে জি.আই.এস. এর ব্যবহার বৃদ্ধির কারনে এখন অনেকেই জি.আই.এস. স্পেশালিস্ট, জি.আই.এস. গবেষক অথবা ওয়েব জি.আই.এস. প্রোগ্রামার হিসেবে ক্যারিয়ার গড়ছে। আর কেউ যদি জি.আই.এস. এ আরও ভালো ক্যারিয়ার গড়তে চায় তাহলে ওয়েব জি.আই.এস. এ সেটা গড়তে পারে যার কর্মক্ষেত্র হচ্ছে ট্র্যাকিং সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান, রাইড শেয়ার সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান যেখানে ওয়েব ম্যাপ ভিত্তিক কাষ্টমার অথবা ব্রাঞ্চ অফিস ভিত্তিক বিশ্লেষন করা হয় ইত্যাদি।

জি.আই.এস. এর পড়াশোনা

বাংলাদেশের যেসকল বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে নগর পরিকল্পনা অথবা ভুগোল নিয়ে পড়াশুনা হয় সেখানে জি.আই.এস. এর উপর ট্রেনিং দেয়া হয় এবং তাদের স্নাতক অথবা স্নাতকোত্তর সিলেবাসেও জি.আই.এস. আছে। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, বুয়েট, কুয়েট, রুয়েট, চুয়েট ইত্যাদি বিশ্ববিদ্যালয়ের নগর পরিকল্পনা বিভাগে এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল বিভাগে জি.আই.এস. বিষয়টি আছে এমনকি জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে জি.আই.এস. এর উপর স্নাতকোত্তর ডিগ্রীও প্রদান করা হয়।

মোঃ শাহ্‌রিয়ার আলম

সিনিয়র ওয়েব জি.আই.এস. স্পেশালিস্ট, এন.আই.টি.এস., নিটল নিলয় গ্রুপ , বাংলাদেশ।
ওয়েব জি.আই.এস. ইন্সট্রাক্টর, ইউডেমি, ইউ.এস.এ.।
মেম্বার, ওপেনস্ট্রিটম্যাপ ফাউন্ডেশন, ইউ.কে.।

শেয়ার করুন:

এই নিউজটি আপনার বাংলাদেশী বন্ধুদের মোবাইলে এসএমএস এ শেয়ার করুন।

AdsMic